প্রত্যাশা – (অবনী ভূষণ বালা)


প্রত্যাশা


(অবনী ভূষণ বালা)


যে জানালা দিয়ে প্রত্যেক সকালে
খোকা নতুন সূর্য ওঠা দেখতো–
উচ্ছ্বাসে হাত বাড়ায়ে খোকা
সূর্যটাকে হাতে পেতে চাইত,ছোট্ট হাতে
হাত দুটি ধরে ধরে, হাঁটি হাঁটি ঘোরা ফেরা
থকাস্ থকাস্ চলা, ধূলাবালি গায়ে মেখে
দূর্বা কোমল ঘাসে ছোটাছুটি খেলত,
আজ চোখ বুজতেই খোকার প্রানবন্ত দৃর্শ্য
নাড়া দেয় প্রানে, মনে, হৃদয়ে, নয়নে—-
আশিটা বছর কেটে গেছে তাই না?
আজ খোকার গোমড়া মুখ বিরক্তির ছায়া
জান?হাসি মুখ করে কাছে আসে একদিন
মোবাইল ম্যাসেজ পেনশন খবরহয় যেদিন
খোকার স্নেহ ষ্পর্শ্য মাতৃত্বকে ভরে দেয়,
বাঁচতে ইচ্ছেহয় সেই খোকাকে কোলে তুলে ,
কিন্তু তার অস্তিত্ব বড় ক্ষীণকাল!
পেনশনের টাকা কটা বৌমার ব্যাগে ঢুকতেই,
বিরক্তি,অবহেলা, এসে ঘিরে ধরে
যেন নরকে হারিয়ে যাই, আমি শুধু একা
তবু খোকা সুখে থাক,এই আমার প্রত্যাশা।
যেন নরকে হারিয়ে যাই, আমি শুধু একা
তবু খোকা সুখে থাক,এই আমার প্রত্যাশা।

(অবনী ভূষণ বালা)

<

KonkanMail Desk

WE RESPECT YOUR OWN LANGUAGE , LITERATURE , CULTURE , CRITICS ,TIPS ,ENVIRONMENTAL JUDGEMENT : FLOCKING TO GATHER THE WORLD-MOST GOODNESS

Comments are closed.

Loading...

Random Posts

Media Links :-

Subscribe



Skip to toolbar