শুভ বিজয়ার প্রীতি শুভেচ্ছা ।

যাই হোক সবাই এর জন্য দুর্গাপুজো আছে ও থাকবে। কিন্তু থ্যালাসেমিয়া রোগীর জন্য কোন পূজায় আনন্দ দিতে পারবে না।

গতকাল অর্থাৎ 27 অক্টোবর ২০২০, আমাকে টেলিফোন করেন, হুমায়ুন শেখ বলেন… সাব মেজর নরেশ স্যার, খুব বিপদে পড়েছি, একটি থ্যালাসেমিয়া রোগী আছে যার A নেগেটিভ রক্তের প্রয়োজন। রক্ত না দিলে বাঁচবে না। বললাম, পেশেন্টের অভিভাবকের সাথে কথা বলব…. যথারীতি বিজয় সান্যাল আমাকে রিং করলেন। শান্তিপুর, মতিগঞ্জ এর মোড়ের পাশেবাড়ী, রোগীর নাম : নেহা সান্যাল , বয়স: সাড়ে তিন বছর, বাবা: সুপ্রিয় সান্যাল, মাতা: মাধুরী সান্যাল এবং দাদু : বিজয় সান্যাল। আমার সাথে বিজয় সান্যাল এর কথা হয়। তিনি বলেন…. A নেগেটিভ রক্ত কোথাও পাওয়া যাচ্ছে না, আর নেহার অবস্থা খুব খারাপ হতে চলেছে, এমত অবস্থায় আমাকে একটু সাহায্য করতে হবে। যথারীতি সমুদ্রগড় এর নিবাসী শিবাজী বাবুর সঙ্গে কথা বলি… শিবাজী বাবু রাজি হয়ে যায় নেহাকে A নেগেটিভ রক্ত দেয়ার জন্য। বিজয় সান্যাল কে বলি…. আপনি তাড়াতাড়ি কাল সকাল বেলা অর্থাৎ 28 অক্টোবর ২০ কালনা সুপার স্পেশালিটি হসপিটালে ভর্তি করে দিন। যথারীতি সকাল আটটার সময় নেহাকে ভর্তি করে দিলেন। আমি কালনা হসপিটালের ব্লাড ব্যাংকের MO ডাঃ গাঙ্গুলী স্যারের সঙ্গে কথা বলি।

স্টাফরা এমন অমায়িক ব্যবহার করল, জীবনে ভুলতে পারব না।

নরেশ দা, আপনি পুজোর পরে শুভ বিজয়া দশমী দিতে এলেন সাথে ও একজন থ্যালাসেমিয়া রোগীকে নিয়ে এলেন। তবে, ব্লাড ব্যাংকে একটি ইউনিটি A নেগেটিভ রক্ত আছে। তাড়াতাড়ি রিকুইজিশন করে নিয়ে আসুন। হয়ে যাবে অসুবিধা হবে না, এর সাথে অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপার শামীম বাবুকে অন্তর থেকে শ্রদ্ধা জানাই এই কাজের মধ্যে তিনিও খুব উপকার করেছেন।

তবে একটু গল্প বলে শেষ করি…

বিবাহর আগে ঠিকুজি নয়, থ্যালাসিমিয়া রক্ত পরীক্ষা প্রয়োজন। এখানে সুপ্রিয় সান্যাল নেহার বাবা আর মাধুরী সান্যাল নেহার মা, উভয়ই থ্যালাসেমিয়া বাহক। তাই থ্যালাসেমিয়া রোগী জন্মগ্রহণ করেছে নেহা সান্যাল। যদি নেহার বাবা বাহক হতেন, আর নেহার মা স্বাভাবিক হতেন, ১০০% নেহা থালাসেমিয়া রোগী হতো না। এইটাই হল চরম সত্য কথা।

আপনাদের কাছে অনুরোধ ছেলে মেয়ের বিয়ে দেওয়ার আগে থ্যালাসেমিয়া রক্ত পরীক্ষা করে অবশ্যই বিয়ে ব্যবস্থা করুন।

যিনি বাহক, তিনি স্বাভাবিক মানুষকে বিয়ে করুন। যদি এইভাবে হয়, ভারতবর্ষে থ্যালাসেমিয়া রোগী জন্ম গ্রহন করিবে না। সচেতন হোন,

প্রেমিক-প্রেমিকাদের বলছি…. প্রেম জীবনে অনেক আসবে, কিন্তু সামান্য ভুলের জন্য নেহার মত বাচ্চাকে জন্ম দেবেন না।

জয় হিন্দ!

সৌজন্যে… সাবমেজর নরেশচন্দ্র দাস