স্বামী বিবেকানন্দের বাণী দিয়ে কাজটা শুরু করি _ এই জীবন ক্ষণস্থায়ী । পার্থিব ও অহংকারগুলোও দুদিনের। একমাত্র তারাই বেঁচে থাকেন, যারা অপরের জন্য বেঁচে থাকেন ,অন্যেরা জীবন্মৃত।”

17 ই ডিসেম্বর 20 , আমি আজ থ্যালাসেমিয়া রোগীদের সম্বন্ধে বলবো না। একজন ভদ্রমহিলা নাম ফতেমা বিবি। বাড়ি: রুস্তমপুর, কালনা পূর্ব বর্ধমান। শারীরিক অসুস্থতার জন্য কালনা নতুন বাস স্ট্যান্ড এর মধ্যে বেসরকারি লীলা হসপিটালে ভর্তি হন। রক্তের অভাবে অপারেশন বন্ধ আছে।

গতকাল আমার সাথে ফতেমা বিবির পরিবার থেকে টেলিফোনে যোগাযোগ করে এবং বলেন_ যেমন করেই হোক একটি AB পজেটিভ ডোনারের ব্যবস্থা করে দিতে হবে। অপারেশন করা যাচ্ছে না এবং রোগীর অবস্থা খুবই শোচনীয় । আমি তাড়াতাড়ি ব্লাড রিকুইজিশন টা হোয়াটসঅ্যাপে জসিম শেখ এর কাছে পাঠিয়ে দিই, (সমুদ্রগড়), তার সাথে জয় সরকারের কাছেও পাঠাই।

জসিম শেখ আমাকে বলল_ স্যার অন্য জায়গায় কিংবা অন্য কারোর কাছে বলতে হবে না । আমি ডোনারের ব্যবস্থা করে দেব। সেই মত অবস্থায় পেশেন্ট পার্টিকে বলে দিলাম।

সত্যি বলতে কি? যার প্রকৃত মনুষত্ববোধ, বিবেকবোধ, দৃঢ় সংকল্প, স্বচ্ছচিন্তা, উদ্যম এবং সেবাপরায়নতা তার সাথে যদি স্বার্থশূন্যতা থাকে, তবে অসম্ভব কাজ, সম্ভব হয়ে ওঠে। জসিম শেখ এবং হাকিম শেখ সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলেন। যদি মানুষের মধ্যে পবিত্র আর নিঃস্বার্থ কাজ করার নেশা চাপে , সেখানে সংকট বলে কিছুই থাকেনা ।

জসিম শেখ ডোনার কে সাথে করে নিয়ে সোজা কালনা ব্লাড ব্যাংকে হাজির হলেন। আমি ব্লাড ব্যাংকের স্টাফদের সব সময় রেসপেক্ট করি , কারণ সব সময় ব্লাড ব্যাংকের স্টাফেরা কাঁধে-কাঁধ মিলিয়ে মানুষের কল্যাণে অনবরত কাজ করে থাকেন। ডোনার এর নাম হাকিম শেখ। সত্যিই হাকিম শেখ, হাকিম এর মতোই কাজ করে গেলেন। এই ভয়াবহ অবস্থা থেকে ফতেমা বিবি কে মুক্তি দিলেন এবং রক্ত দান করে তার জীবনটা সাধারণ গতিতে ফিরিয়ে দিলেন।

আমি ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি ফতেমা বিবি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরুন। আর হাকিম শেখ ও জসিম শেখ কে অন্তর থেকে প্রীতি শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানাই। এখানে একটু সামান্য কথা বলি_ হাড়িকাঠে যখন মাথায় ঢোকে তখন বুঝতে পারে রক্তের কি দাম?, জীবনে কোনদিন রক্তদান করেনি, আর রক্ত কার্ড নিয়ে কালনা ব্লাড ব্যাংকে ঘোরাঘুরি করছে, রক্ত চাই। এটা কি সম্ভব?

কালনা ব্লাড ব্যাংক কি রক্ত উৎপাদন করবে? না_ কখনোই না।

প্রত্যেক মানুষকে সচেতন হতে হবে, রক্ত দিয়েই রক্ত নেব। তাহলে কোন রক্ত সংকট থাকবে না। সামান্য হলেও ত্যাগ আর সেবা মানুষের আদর্শ হওয়া দরকার।

স্বামী বিবেকানন্দ বলেছেন__তাকেই আমি মহাত্মা বলি যার হৃদয় থেকে গরীবদের জন্য রক্তমোক্ষণ হয়, অন্যথায় দুরাত্মা।

জয় হিন্দ।

Published by Sub-Mejar Nareshchandra Das

Sub Major Nareshchandra Das, retired military personal, Social Worker , Lecturer for Thalassemia disease. whatsApp no. 8972084560